এবার আষাঢ়ে বৃষ্টি কম

নিজস্ব প্রতিবেদক : আকাশে মেঘের ভেলা ঘুরছে, বজ্রপাতের ঝিলিকও রয়েছে কখনও কখনও; এর মধ্যে ভরদুপুরে ভ্যাপসা গরম আর অকস্মাৎ ঝিরিঝিরি বৃষ্টি। আষাঢ় মাসের ১৩ দিন পার করেও এমন আবহাওয়া বিরাজ করছে। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, মৌসুমি বায়ু দুর্বল থাকায় মধ্য আষাঢ়ে অপেক্ষাকৃত কম বৃষ্টি হচ্ছে। তবে কিছুদিন পর সারা দেশে ভালোভাবে সক্রিয় হতে পারে বর্ষা। সোমবার সিলেট, চট্টগ্রাম ও রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হলেও রাজধানীসহ অনেক এলাকায় ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস কর্মকর্তা রুবাইয়াত কবির বলেন, বর্ষাকাল এসেছে, মাত্র শুরু হলো মৌসুমের; বৃষ্টি হবেই। তবে কোথাও কম, কোথাও বেশি হচ্ছে। এখন বাংলাদেশের ওপর দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু অর্থাৎ বর্ষা কিছুটা দুর্বল রয়েছে। বর্ষা দুর্বল থাকায় অনেক এলাকায় কম বৃষ্টি হচ্ছে বলে জানান তিনি। এখন মেঘলা আবহাওয়ায় ভ্যাপসা গরম যেমন অনুভূত হচ্ছে, আবার কোথাও মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণ হচ্ছে- এটা স্বাভাবিক। আগামী মাসে বৃষ্টিপাত বাড়তে পারে। ঈদের সময়টুকুতে একপশলা বৃষ্টিও হতে পারে, বলেন এ আবহাওয়াবিদ।

সোমবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রংপুরের রাজারহাটে ৩৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় সিলেটে ৭৬ মিলিমিটার সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। মঙ্গলবারের পূর্বাভাসের বিষয়ে বলা হয়, রংপুর, রাজশাহী, খুলনা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং বরিশাল, ঢাকা, চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকাসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি বর্ষণ হতে পারে।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) পর্যবেক্ষণ স্টেশন নরসিংদীতে ১০১ মিলিমিটার, পঞ্চগড়ে ৭৪ মিলিমিটার, সিলেটে ৬৭ মিলিমিটার ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। পাউবোর এক বিজ্ঞপিতে জানানো হয়, যমুনা ও গঙ্গা-পদ্মা নদীতে পানি সমতলে বাড়ছে ও ব্রহ্মপুত্র-সুরমা-কুশিয়ারার নদীতে সমতলে কমছে। ৪৮টি পয়েন্টে পানি বাড়ছে, কমেছে ২৯টি পয়েন্টে।

এর আগে জুন মাসের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছিল, এবার বর্ষার শুরুতে সারা দেশে স্বভাবিক বৃষ্টিপাতের পাশাপাশি উত্তর, মধ্য এবং উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের কিছু এলাকায় বন্যা দেখা দিতে পারে। সে সময় অধিদপ্তরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ বলেছিলেন, জুনের দ্বিতীয়ার্ধে সারা দেশে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু (বর্ষা) বিস্তার লাভ করতে পারে। এ সময় স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হতে পারে।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "এবার আষাঢ়ে বৃষ্টি কম"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*