কালিয়ায় হতদরিদ্রের ১৮৬ বস্তা চাল খোলা বাজারে বিক্রির চেষ্টা!

নিউজ ডেস্ক॥ নড়াইলের কালিয়া উপজেলায় একটি ধান ছাটাই মিল মালিকের বিরুদ্ধে খাদ্য অধিদপ্তর লেখাযুক্ত ১৮৬ বস্তা চাল বিক্রির অভিযোগ উঠেছে।
সরেজমিনে জানা গেছে, কালিয়া উপজেলার মহাজন গ্রামের আলাউদ্দিন বিশ্বাসের ছেলে মামুন বিশ্বাস দীর্ঘদিন ধরে নামেমাত্র ধান ভাঙ্গানো মিলে ছাটাই ব্যবসার অন্তরালে সরকারী চাল ক্রয়-বিক্রয় করে আসছে। সম্প্রতি তিনি সরকার নির্ধারিত খাদ্য অধিদপ্তর লেখাযুক্ত বস্তা উল্টিয়ে খোলা বাজারে বিক্রির জন ২০ কেজি করে চাল প্যাকেট করে বাজারজাত করার জন্য প্রস্তুত করছেন। বিষয়টি শুক্রবার (২৭ডিসেম্বর) দুপুরে কালিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও খাদ্যগুদাম কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়। খাদ্যগুদাম কর্মকর্তা ৩ঘন্টা পর পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হন। এ বিষয়ে মিল মালিক মুমুন বিশ্বাস বলেন, তিনি টাকার বিনিময়ে ২০ কেজি করে চাল বস্তায় ভরে সেলাই করছেন। তিনি বলেন, এ-চাল তাদের ইউনিয়নের গন্দবাড়িয়া গ্রামের শ্যামাপদ দাসের ছেলে শংকর দাসের। শংকর নিজেকে চাল ব্যবসায়ী দাবী করে বলেন, তিনি খাদ্য অধিদপ্তরের খালি বস্তা কিনেছেন। অপর সুত্রে জানা যায়, মামুন ও শংকর যৌথভাবে দীর্ঘদিন ধরে সরকারী বিভিন্ন প্রকল্পের চাল কেনা-বেচা করে আসছেন।
কালিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: নাজমুল হুদা বলেন, উপজেলা খাদ্যগুদাম কর্মকর্তা ও পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। প্যাকেটজাত চাল খাদ্য অধিদপ্তরের নয়।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "কালিয়ায় হতদরিদ্রের ১৮৬ বস্তা চাল খোলা বাজারে বিক্রির চেষ্টা!"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*