লোহাগড়ায় যুবক হত্যা ॥ প্রেমিকা স্বর্নালী পলাতক

লোহাগড়ায় যুবক হত্যা ॥ প্রেমিকা স্বর্নালী পলাতক

নিউজ ডেস্ক : নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার দেবী গ্রামে নিখোঁজের তিন দিন পর বৃহস্পতিবার দুপুরে এক যুবকের ক্ষত-বিক্ষত লাশ ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত মামুন মোল্যা (২২) দেবী গ্রামের ইকবার মোল্যার ছেলে।
সরোজমিনে গিয়ে লোকজনের কাছে খোজ খবর নিয়ে জানা যায়, উপজেলার নোওয়াগ্রাম ইউনিয়নের দেবী গ্রামের মামুন মোল্যা সোমবার (১৫ নভেম্বর) বিকালে বাড়ি থেকে বের হন এবং সন্ধ্যার পর থেকে সে নিখোঁজ হয়। এ সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ ছিল। পরে পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন জায়গায় মামুনের খোঁজ-খবর নিয়েও তার কোন সন্ধান পায়নী। বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) সকাল ১০ টার দিকে মামুনের ক্ষত-বিক্ষত লাশ পার্শ্ববর্তি শুকুর ফকিরের বাড়ির পাশে একটি ধান ক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। নির্মম ও চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকান্ডের ঘটনাটি এলাকায় চাউর হয়ে পড়ে। ১৭ নভেম্বর অনলাইন পত্রিকা নিউজ এ্যালাইনে ছত্রহাজারী গ্রামের কাজী ইকবাল হোসেন’র কলেজ পড়োয়া মেয়ে স্বর্নালী খানমের সাথে মামুন মোল্লার দীর্ঘ দিনের প্রেমজ সর্ম্পক চলে আসছিলো। সে সর্ম্পকটা স্বর্নালীর পরিবার কখনো মেনে নেয়নি। সংবাদটি প্রকাশিত হলে (১৮নভেম্বর) রাতে স্বর্নালীর পরিবার বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। এলাকাবাসি স্বর্নালীর বাড়ির আশপাশে নজর দারি করলে মামুন হত্যার রক্ত মাখা আলামত দেখতে পেলে মুহুর্তের মধ্যে কয়েক হাজার গ্রামবাসি এসে বাড়ি ঘেরাও করে রেখে পুলিশকে খবর দেয়। লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম,এসআই নজরুল ইসলাম ও এসআই নুরমোহাম্মাদ সংগীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে রক্তমাখা বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেন।স্বর্নালী ও তাদের পরিবারের সকলেই পলাতক রয়েছে। এলাকাবাসি পলাতক স্বর্নালী খানম ও তার পরিবারের সদস্যরা পরিকল্পিত ভাবে এই হত্যাকান্ডটি ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে। হত্যার রহস্য উদঘাটনের জন্য পলাতক স্বর্নালী খানমকে আটক করে পুলিশের নিকট হস্থন্তর করে ন্যায় বিচার ও দোষীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তীরও জোর দাবি জানান তারা । স্বর্নালী খানম লক্ষীপাশা মহিলা কলেজের এইচ এস সি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী, কলেজ রোল ৩১৬। কলেজের শিক্ষার্থী সুত্রে জানা যায় স্বর্নালী খানম, তালাক প্রাপ্তা ও তার একাধিক ছেলে বন্ধু রয়েছে । নিহত মামুনের শরীর, মাথা ও ঘাড়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং কোমরের নিচে দু’পায়ের সমস্ত মাংস ও তার পুরুষাঙ্গটি কেটে আলাদা করে রাখা হয়েছিল।
লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, হত্যার বিষয়টি গুরুত্বের সাথে তদন্ত করবেন বলে জানান।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "লোহাগড়ায় যুবক হত্যা ॥ প্রেমিকা স্বর্নালী পলাতক"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*