অস্ট্রেলিয়াকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

নিউজ ডেস্ক : ৯ উইকেটে ১৮৯ রান। এটাই ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ। এমন সংগ্রহ এখন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেও হর হামেশা টপকে যায় প্রতিপক্ষ। আর এটা তো ওয়ানডে ম্যাচ। অস্ট্রেলিয়া নিশ্চয়ই সহজে জিতবে। যারা এমনটা ভেবেছিলেন তাদের চমকে দিয়েছে প্রোটিয়াদের তিন স্পিনার ও দুই পেসারের বোলিং অ্যাটাক। তাদের নৈপুণ্যে অস্ট্রেলিয়াকে ৪৭ রানে হারিয়ে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে প্রথম জয় তুলে নিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। তার মানে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই আসরে তিন দলের এখন সমান পয়েন্ট।

গায়ানায় রান হচ্ছে কম। উইকেট পড়ছে বেশি। গেলো রাতে প্রোটিয়াদের টপ অর্ডারের কেউ বড় রান দিতে পারেননি। কুইন্টন ডি কক (১৮), হাশিম আমলা (৩৫) ও অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স (২২) কিছু রান করেছেন। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহে মূল অবদান ফারহান বেহারদিনের। ৬২ রানের লড়াকু এক ইনিংস খেলেছেন তিনি। দলের আর কেউ বলার মতো কিছু করতে পারেনি। ১৯০ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে প্রথমে পেসারদের সামনে বিপদে পড়েছে অস্ট্রেলিয়া। পরে স্পিনাররা সর্বনাশ করেছেন। তাতে ৩৪.২ ওভারে ১৪২ রানেই অল আউট তারা।

প্রায় ৫ বছর পর কোনো ম্যাচে তিন স্পিনার খেলালো দক্ষিণ আফ্রিকা। লেগ স্পিনার ইমরান তাহির, বাঁ হাতি স্পিনার অ্যারন ফাঙ্গিসো ছিলেন। অভিষেকেই চায়নাম্যান বোলার তাবরাইজ শামসি উজ্জ্বল। উইকেট নিলেন মাত্র একটি। কিন্তু আরো দুটি নিতে পারতেন। দুটি এলবিডাব্লিউর আপিলে সাড়া দেননি আম্পায়ার। যে দুটি দেখে মনে হয়েছে আউট হতেই পারতো।

মর্নে মর্কেল, ক্রিস মরিস, কাইল অ্যাবটের কেউ ছিলেন না এই ম্যাচে। ২০০৫ সালের জুলাইয়ের পর ফাস্ট বোলার ওয়েইন পার্নেল আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার সুযোগ পেলেন। নিজের প্রথম ওভারে ডেভিড ওয়ার্নারকে (১) তুলে নিয়ে তা উদযাপন করেছেন পার্নেল। অষ্টম ওভারে নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথের (৮) উইকেট। মাঝে উসমান খাজাকে (২) তুলে নিয়েছেন তরুণ কাগিসো রাবাদা।
অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ করেছেন ৭২ রান। দুই অঙ্কের রান আর দুটি। দশ নম্বর ব্যাটসম্যান নাথান লায়নের ৩০ ও এগারো নম্বর জস হ্যাজলউডের অপরাজিত ১১। আর কারো দুই অঙ্কের রান নেই।

২১ রানে ৩ উইকেট হারানো অস্ট্রেলিয়াকে শামসি ধাক্কা দেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে (৩) নিজের প্রথম আন্তর্জাতিক উইকেট বানিয়ে। এরপর ১৮ রানের ব্যবধানে ৪ উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। এর দুটি রাবাদার, দুটি তাহিরের। ৯০ রানে ৮ উইকেট হারানো অস্ট্রেলিয়ার গুটিয়ে যাওয়া তখন সময় মাত্র। খেলাটাকে ৩৫তম ওভার পর্যন্ত টেনে নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বোনাস পয়েন্ট বঞ্চিত করে হেরেছে তারা।

 

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "অস্ট্রেলিয়াকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*