আমি মা, তাই সহ্য করা কঠিন ॥ প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক : কী অপরাধ ছিল সাগরে ডুবে যাওয়া সিরিয়ার তিন বছর বয়সী নিষ্পাপ শিশু আইলান কুর্দির? কী দোষ করেছিল পাঁচ বছরের শিশু ওমরান, যে আলেপ্পো শহরে নিজ বাড়িতে বসে বিমান হামলায় মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে? একজন মা হিসেবে আমার পক্ষে এ সকল নিষ্ঠুরতা সহ্য করা কঠিন। বিশ্ব বিবেককে কি এসব ঘটনা নাড়া দেবে না? বিশ্ব ফোরামে দাঁড়িয়ে এই ছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আকুতি।
কেবল আকুতি নয়, তার দৃঢ় আহ্বানও ছিল, অভিবাসী ও শরণার্থীদের পরিবর্তনের নিয়ামক হিসেবে বিবেচনা করতে হবে। হোক সে তার নিজের দেশেই অথবা গন্তব্যে যেখানে গিয়ে সে তার ভাগ্য পরিবর্তন করতে চায়। প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেছেন, গত ১৯ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে অভিবাসী ও শরণার্থী বিষয়ক যে ঐতিহাসিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়ে গেল তা থেকে বের হয়ে আসা ফলাফল অভিবাসনের ধারণা এবং বাস্তবতাকে নতুনভাবে সংজ্ঞায়িত করতে সাহায্য করবে। ওই সম্মেলনেও একজন গুরুত্বপূর্ণ বক্তা ছিলেন শেখ হাসিনা।
বিশ্ব ফোরামকে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, তিনি কেবল প্রত্যাশাই করছেন না, নিজেও দায়িত্ব নিতে আগ্রহী। সুনির্দিষ্ট করে তিনি বলেছেন, নিরাপদ, সুশৃঙ্খল ও নিয়মিত অভিবাসনসংক্রান্ত বৈশ্বিক চুক্তির রূপরেখা প্রণয়নে সহযোগিতা করতে আগ্রহী বাংলাদেশ। তিনি বলেন, আগামী ডিসেম্বরে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে গ্লোবাল ফোরাম অন মাইগ্রেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (জিএফএমডি)। এই ফোরামে আমরা অভিবাসনসম্পর্কিত সকল বিষয়ে গঠনমূলক সংলাপের প্রত্যাশা করছি।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "আমি মা, তাই সহ্য করা কঠিন ॥ প্রধানমন্ত্রী"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*