বাঁশখালীতে ভোট স্থগিত, এমপির বিরুদ্ধে মামলা হবে

নিউজ ডেস্ক : চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে এক নির্বাচন কর্মকর্তা ‘স্থানীয় সাংসদের হাতে মারধরের শিকার’ হওয়ার পর উপজেলার সব ইউনিয়ন পরিষদের ভোট স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।
সেই সঙ্গে উপজেলার নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদ হোসেনকে মারধরের অভিযোগে বাঁশখালীর সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন।
বুধবার বিকালে তিনি বলেন, “নির্বাচন কর্মকর্তাকে মারধরের কারণে বাঁশখালী উপজেলার সব নির্বাচন বন্ধ করা হয়েছে। স্থানীয় সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে মামলা করা সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এই মামলা করবেন।”
উপজেলার নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদের অভিযোগ, আগামী ৪ জুন অনুষ্ঠেয় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জন্য ‘ফর্দ অনুযায়ী’ ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা ‘নিয়োগ না দেওয়ায়’ দুপুরে সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান ও আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা তাকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে মারধর করেন।
অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করে সাংসদ মোস্তাফিজ বলেছেন, “সেখানে মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি। যা বলা হচ্ছে ওসব মিথ্যা কথা।”
ষষ্ঠ ও শেষ ধাপে ৪ জুন সারা দেশে সাত শতাধিক ইউপির মধ্যে  বাঁশখালী উপজেলায় ১৪টি ইউপিতে ভোট হওয়ার কথা ছিল। এর মধ্যে তিনটি ইউপির ভোট ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর কারণে স্থগিত করেছিল ইসি। এবার বাকি ১১ ইউপির ভোটও স্থগিত হয়ে গেল।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "বাঁশখালীতে ভোট স্থগিত, এমপির বিরুদ্ধে মামলা হবে"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*