রিভিউ চাইবেন মীর কাসেম: আইনজীবী

নিউজ ডেস্ক : যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলী আপীলের রায়ের রিভিউ চাইবেন। শনিবার কাশিমপুর কারাগারে আইনজীবীদের সঙ্গে সাক্ষাতে কাসেম তার এ ইচ্ছার কথা জানান। কারাগারে দেখা করে এসে তার আইনজীবী মতিউর রহমান আকন বলেন, ‘মীর কাসেম আলী তার বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের রায়ের রিভিউ আবেদন করবেন। এজন্য আমাদের সকল প্রস্তুতি নিতে বলেছেন।’ রিভিউ’র জন্য আপীল রায়ের ‘সার্টিফায়েড কপি’র আবেদন করা হয়েছে বলেও আকন জানান।

‘রায়ের সার্টিফায়েড কপির জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছে। রবিবার হয়তো আমরা সেটা হাতে পাব। এরপর রিভিউর প্রস্তুতি নেয়া হবে।’এর আগে বেলা পৌনে ১২টায় ছেলেসহ পাঁচ আইনজীবী কাশিমপুর কারাগারে মীর কাসেমের সঙ্গে দেখা করেন বলে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এর সুপার প্রশান্ত কুমার বনিক জানান।

আইনজীবীদের আকন ছাড়াও ছিলেন- মীর কাসেমের ছেলে মীর আহমেদ বিন কাসেম আরমান, মো. নাজিবুর রহমান, মো. বজলুর রহমান ও মো. নুরু উল্লাহ। তারা মীর কাসেমের সঙ্গে ৪০ মিনিটের মতো কথা বলেন বলে সুপার জানান।  ২০১২ সালে গ্রেপ্তারের পর থেকেই মীর কাসেম এ কারাগারে বন্দি। ফাঁসির দণ্ড ঘোষণার পর থেকে তাকে কারাগারের ফাঁসির সেলে রাখা হয় বলে কাশিমপুর কারাগারের জেলার মো. নাশির আহমেদ জানিয়েছেন। ২০১৪ সালের ২ নভেম্বর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের রায়ে মীর কাসেমকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। এ বছরের ৮ মার্চ আপীলের রায়েও বহাল থাকে সেই সাজা। বিচারকরা সই করার পর ৬ জুন ২৪৪ পৃষ্ঠার সেই রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশ করে সুপ্রীমকোর্ট। তা হাতে পাওয়ার পর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আসামির বিরুদ্ধে জারি করে মৃত্যু পরোয়ানা,যার মধ্য দিয়ে সাজা কার্যকরের প্রক্রিয়া শুরুর পথ তৈরি হয়। ট্রাইব্যুনাল থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার ঘুরে সোমবার রাতেই কাশিমপুর কারাগারে পৌঁছায় লাল সালুতে মোড়া সেই পরোয়ানা। ৭ জুন সকালেই মীর কাসেমকে মৃত্যু পরোয়ানা পড়ে শুনানো হয়। যুদ্ধাপরাধ মামলায় সর্বোচ্চ আদালতের রায় আসার পর রিভিউ আবেদনই বিচারিক প্রক্রিয়ার শেষ ধাপ। নিয়ম অনুযায়ী, আসামিপক্ষ পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের ১৫ দিনের মধ্যে পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) জন্য আবেদন করার সুযোগ পাবে। রিভিউ নিষ্পত্তির আগে দণ্ড কার্যকর করা যাবে না।

রিভিউ না টিকলে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইতে পারবেন একাত্তরের বদর নেতা মীর কাসেম। সে আর্জি নাকচ হলে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে কারা কর্তৃপক্ষ দণ্ড কার্যকরের ব্যবস্থা নেবে।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "রিভিউ চাইবেন মীর কাসেম: আইনজীবী"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*