সারাদেশে ৬ মাসে ধর্ষিত ৪৯৯ জন

নিউজ ডেস্ক: চলতি বছরের প্রথম ৬ মাসে দেশে ৪৯৯ জন নারী ও কন্যা শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এর মধ্যে গণধর্ষণ হয়েছে ৬৪ জন।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু এ তথ্য জানান।

১৪টি পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের বরাতে করা প্রতিবেদনটিতে মালেকা বানু বলেন, ‘২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে জুন অবধি ২৫৩৭ জন নারী ও কন্যা শিশু নির্যাতনের শিকার হয়। এরমধ্যে ৬৪ জন গণধর্ষণসহ মোট ৪৯৯ নারী ও কন্যা শিশু ধর্ষণ হয়েছে। আর ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ১৫ জনকে। এছাড়া ৮০ জনকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয় এই সময়ে।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘এসময়ে শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছে ৬১ জন। যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে ৫৭ জন। এসিডদগ্ধ হয়েছে ১৯ জন। অগ্নিদগ্ধের ঘটনা ঘটেছে ৪৩টি। এরমধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। অপহরণের ঘটনা ঘটেছে মোট ৯৫টি। নারী ও শিশু পাচার করা হয়েছে ৩৫ জনকে। এরমধ্যে পতিতালয়ে বিক্রি করা হয়েছে ৭ জনকে।’

তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন কারণে ৪০৬ জন নারী ও কন্যা শিশুকে হত্যা করা হয়েছে এবং আরও ২২ জনকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। ২৩ জন গৃহপরিচারিকাকে নির্যাতন করা হয়েছে। এর মধ্যে খুন হয়েছে ১০ জন। আত্মহত্যায় বাধ্য হয়েছেন ২ জন। যৌতুকের জন্য হত্যা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছে ১৬৯ জন। যার মধ্যে হত্যা করা হয়েছে ৮০ জনকে। উত্ত্যক্ত হয়েছে ১২৫ জন।’

‘উত্তক্তের কারণে আত্মহত্যায় বাধ্য হয়েছে ৪ জন। বিভিন্ন নির্যাতনের কারণে ১৭০ জন আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন। আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন ১৭ জন। ২০৫ জনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বাল্য বিয়ের শিকার হয়েছে ১০৭ জন। শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে ২২৫ জনকে। বে-আইনি ফতোয়ার ঘটনা ঘটেছে ৫টি। পুলিশী নির্যাতনের শিকার হয়েছে ৭ জন। এছাড়া ১৪৭টি অন্যান্য নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে,’ বিবৃতিতে উল্লেখ করেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "সারাদেশে ৬ মাসে ধর্ষিত ৪৯৯ জন"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*