অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে সময় চান মিসবাহ

নিউজ ডেস্ক : বয়স তো চল্লিশের কোটায় চলে গেছে। দলের প্রয়োজনে এখনও খেলে যাচ্ছেন পাকিস্তান টেস্ট অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক। কিন্তু দলের প্রয়োজনই তো সব না, শরীর চাইছে অবসর। কিন্তু ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর সেই দিনটি কবে আসবে? মিসবাহ বললেন, পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল) এর পর নিজের টেস্ট ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা করবেন

মিসবাহ বলেছেন, “নিজের সম্পর্কে পর্যবেক্ষন করতে বললে একটি কথাই বলতে হয় ক্রিকেট খেলতে আমি কতটা মুখিয়ে থাকি। আমি মনে করি এই এক মাসের মধ্যে আমি একটি সিদ্ধান্ত নিতে পারবো। হয় সরে যাবো অথবা একটি নির্দিষ্ট তারিখ উল্লেখ করে দেব। ২০১৫ সালের নভেম্বরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের পর সহজেই অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে পারতাম। কিন্তু সেটা সঠিক পন্থা হতো না। ”

নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পরপর দুটি সিরিজ হারার পরে বেশ চাপের মধ্যে আছেন পাকিস্তানের টেস্ট অধিনায়ক। একই সাথে ৪২ বছর বয়সী মিসবাহর নিজস্ব ফর্ম নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে। বিশেষ করে সিরিজে তার শট নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। পুরো সিরিজে তার সর্বোচ্চ রান ছিল মাত্র ৩৮।

এ সম্পর্কে অবশ্য মিসবাহ বলেছেন, “মিডল অর্ডারে আমি যখন ব্যাট করতে নামি তখন দলের প্রয়োজনে ক্রিজে টিকে থাকাটাই মুখ্য হয়ে উঠে। যদি দলের ৪ উইকেটের পতনের পরে একজন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের প্রয়োজন হয় ইনিংস ধরে রাখার জন্য, তখন আসলে উইকেট ধরে রাখতে চেষ্টা করি। সব সময়ই আমার মধ্যে একটি বিষয় কাজ করে যে আমরা যদি ভালো রান এনে দিতে পারি তবে বোলারদের জন্য বাকি কাজটা অনেক সহজ হয়ে যায়। কিন্তু আমার রাগ হয় তখনই যখন আমার ব্যাটিং নিয়ে সাবেক খেলোয়াড়রা প্রশ্ন তোলে। ”

মিসবাহর নেতৃত্বে প্রথমবারের মতো টেস্ট র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থান দখল করে পাকিস্তান। যদিও তা বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। মিসবাহ মনে করেন নিজের অর্জনের চেয়ে দলের প্রয়োজনটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তার মতে, একটি নির্দিষ্ট স্থানে দল পৌঁছানোর পরে অনেক কিছুই মনে হয়। সে কারণেই পাকিস্তান শীর্ষস্থানে যাবার পরে অবসেরর সিদ্ধান্ত নেওয়াটা সহজ ছিল। কিন্তু কখনই ব্যক্তিগত অর্জনকে সামনে নিয়ে আসা হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে সময় চান মিসবাহ"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*