লোহাগড়ায় শত্রুতার জেরে আগুনে পুড়েছে ৬টি গবাদী পশু!

লোহাগড়ায় শত্রুতার জেরে আগুনে পুড়েছে ৬টি গবাদী পশু!

নিউজ ডেস্ক॥ নড়াইলের লোহাগড়ায় পূর্বশত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের দেওয়া আগুনে এক কৃষকের ছয়টি ছাগল (গবাদি পশু) সোমবার (৮এপ্রিল) রাতে পুড়ে মারা গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আগুনে গোয়াল ঘরটিও পুড়ে ছাই হয়েছে।
সরেজমিন জানা যায়, উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের শাহবাজপুর গ্রামের মোতালেব মোল্যার গোয়াল ঘরে সোমবার রাত সাড়ে বারটার দিকে দুর্বৃত্তরা অগ্নিসংযোগ করে পালিয়ে যায়। আগুন পুরো গোয়ালঘরে ছড়িয়ে পড়ে। গ্রামবাসী ছুটে এসে আগুন নেভাতে পারলেও গোয়ালে থাকা ৬টি ছাগল আগুনে পুড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। ধারণা করা হচ্ছে, জায়গা-জমি ও চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের লোকজন আগুনের এঘটনা ঘটিয়েছে। মধুমতি নদীর ভাঙ্গনে ভিটে-মাটি হারিয়ে তেতুলিয়া গ্রাম থেকে মোতালেব মোল্যা দু’বছর আগে ১৭শতক জমি কিনে বসবাস করে আসছেন। মোতালেবের স্ত্রী হাসনা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, তিনি একটি ভাগরাহালি ছাগল থেকে অনেক কষ্ট করে ৬টি ছাগল করেছেন। তার দীর্ঘদিনের কষ্ট ও লালিত স্বপ্ন একবারেই শেষ।
এ ব্যাপারে লোহাগড়া থানায় অভিযোগ দিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থরা। মোতালেব মোল্যা জানায়,একই গ্রামের মৃত খালেক মোল্যার ছেলে কালাম মোল্যার সাথে তার বসতবাড়ির জমি সীমানা এবং সিদ্দিক কারিকরের ছেলে হাসু কারিকরের সাথে মোবাইল চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি হাসুর নেতৃত্বে হাফিজার,মফিজার, মহিবুর ও কালামসহ ৮/১০ জন মোতালেব মোল্যার বাড়িতে এসে দেখে নেবেন বলে শাসিয়ে যায়।
বিষয়টি নড়াইল-২ আসনের এমপি মাশরাফি বিন মর্তুজা, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমানকে দেখভাল করার দায়ীত্ব দেয়ায় তিনি মঙ্গলবার বিকেলে ছুটে যান ঘটনাস্থলে। এবং ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের খোজ-খবর নিয়ে ন্যায় বিচারসহ আশ্বস্থ করেন আর্থিক সাহায্য প্রদানের।
লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ প্রবীর কুমার বিশ্বাস জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ বিষয়ে খোজ নেয়া হচ্ছে, পশুর প্রতি নির্মমতার তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "লোহাগড়ায় শত্রুতার জেরে আগুনে পুড়েছে ৬টি গবাদী পশু!"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*