চালের বদলে গমও বঞ্চিত লোহাগড়ায় ১৪শ দুস্থ পরিবার

চালের বদলে গম তবুও॥ লোহাগড়ায় ঈদের আগে ভিজিএফ পায়নি দুস্থরা

নিউজ ডেস্ক॥ ভিজিএফ কার্ডে চালের বদলে গমও বঞ্চিত লোহাগড়ার ১৪শ’ দুস্থ পরিবার। প্রতিবছর ঈদের আগে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কার্যক্রমের অধীনে দুস্থদের মাঝে ভিজিএফ চাল বিতরণ করা হয়। তবে এবার সরকারি গুদামে চালের সংকট থাকায় ব্যাহত হচ্ছে কার্যক্রম। চালের পরিবর্তে গম দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। লোহাগড়ায় উপজেলা প্রশাসনের অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মের কারণে কার্যক্রমটি হযবরল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলায় ১টি পৌরসভাসহ ১২টি ইউনিয়নে দুস্থদের মাঝে বরাদ্দকৃত গম সঠিক সময়ে গুদামে পৌঁছেনি। রোববার (২৫জুন) যানবাহনের কুত্রিম সংকট দেখিয়ে তড়িঘড়ি করে কয়েকটি দফায় বরাদ্দকৃত গম পাঠানো হয়েছে ইউনিয়ন পরিষদে। ফলে কোন প্রকার ষ্টক টেকিং ছাড়াই বিতরন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইউপি সদস্যরা।

উপজেলার অন্য ইউনিয়ন গুলির মধ্যে দুস্থদের গম বিতরনে কোন অভিযোগ না থাকলেও অনেকটা অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মের মধ্যে কাশিপুর ইউনিয়নের গম বিতণর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ইউনিয়নে দুস্থদের জন্য ৩৭ দশমিক ১শ ৭৮ মেট্রিকটন গম বরাদ্দ করেন সরকার। বরাদ্দকৃত গমের মধ্যে ১৯ মেট্রিকটন ৩৪ কেজি উত্তোলন করেছেন বলে জানান লোহাগড়া খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা। ফলে ওই ইউনিয়নের শাহবাজপুর গ্রামের রুবি,আছিয়া,জোসনা ও পদ্মবিলা গ্রামের শামেলা,আঙ্গুর ও ফজরোন সহ প্রায় ৫০ শতাংশ দুস্থ পরিবার গম না পেয়ে হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এ অবস্থায় এবার দুস্থদের ঘরে ঈদের আনন্দ নেই বল্লেই চলে।

কাশিপুর ইউপি সদস্য সাদিয়ার রহমান ও আলমগীর হোসেন সহ কয়েকজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে অভিযোগ করে বলেন, ইউপির কোন সভা/মিটিং না করে মেম্বারদের বাদ দিয়ে স্বেচ্ছাচার ভাবে অনুগত সাবেক ২/১ জন সদস্য দিয়ে তালিকা তৈরি করেন। এবং খাদ্য উত্তলোন ও বিতরন করে তাহা আত্মসাত করে আসছেন। গত বছর ঈদুল আযহা উৎসব উপলক্ষে দরিদ্রদের মাঝে বরাদ্দকৃত ভিজিএফের ২৫২ বস্তা চাল আত্মসাত করেন তিনি। ভিজিএফ’র চাল আত্মসাতের বিষয়টি জাতীয় দৈনিকসহ বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হলে বিষয়টি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) নজরে আসে। দুর্নীতির বিষয়টি দুদকের তদান্তাধীন রয়েছে। অপর আরেকটি প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের বিষয়ে দুদকের তদন্তে চুড়ান্তভাবে প্রমানীত হওয়ায় লোহাগড়া থানায় চেয়ারম্যান মতিয়ার সহ তার সহযোগীদের নামে পৃথক ভাবে ৫টি মামলা দায়ের করেছেন দুদক। তার প্রেক্ষিতে খুবই সর্তকতা অবলম্বল করে এবছর অসুস্থতার অজুহাতে ইউপি সদস্য ছলেমানকে ভিজিএফ এর খাদ্য গ্রহন ও বিতরনের দায়ীত্ব ভার প্রদান করেছেন তিনি।

প্রকল্পের ট্যাক অফিসার আবুল খায়ের বলেন, কাশিপুর ইউনিয়নে দুস্থদের জন্য ৩৭ দশমিক ১শ ৭৮ মেট্রিকটন গম বরাদ্দ করা হয়েছে। চাহিদানুযায়ী সরবরাহ না থাকায় ১৯ মেট্রিকটন ৩৪ কেজি গম দুস্থদের মাঝে বিতরন করা হয়েছে। ঈদের পর বাকি ১৮ মেট্রিকটন গম বিতরন করা হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) পলাশ কুমার মুখার্জি বলেন, জনপ্রতি ১০ কেজি চালের পরিবর্তে ১৩ দশমিক ২২৭ কেজি গম বিতরণ করা হয়েছে। কাশিপুর ইউনিয়নে ৩৭ দশমিক ১শ ৭৮ মেট্রিকটন গম বরাদ্দ থাকলেও সরবরাহ না থাকায় খুলনা খাদ্য গুদাম থেকে লোহাগড়া খাদ্য গুদামে আনয়নে পরিবহন সমষ্যা হওয়ায় বিকাল ৫টায় সরবরাহ পাওয়া যায়। এবং কাশিপুর ইউনিয়নের বাকি ১৮ মেট্রিকট গম ওজন করে গুদামে আলাদা রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন’র সাথে মোবাইল ফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেন নাই।

 

Print Friendly, PDF & Email
basic-bank

Be the first to comment on "চালের বদলে গমও বঞ্চিত লোহাগড়ায় ১৪শ দুস্থ পরিবার"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*